আবহাওয়া বিশ্বঘড়ি মুদ্রাবাজার বাংলা দেখা না গেলে                    
শিরোনাম :
কুমিল্লায় সিভিল সার্জন অফিসের নাম ভাঙ্গিয়ে চলছে ভুয়া হাসপাতাল ও ভুয়া ডাক্তার       বিএনপিতে রাজনীতিকরা উপেক্ষিত: ব্যবসায়ী ও পেশাজীবীদের জয়জয়কার!      রামপুরা থানা আওয়ামীলীগের কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদ পাচ্ছে বিএনপি-জামায়াত নেতারা!      নিষিদ্ধ বিট কয়েনের গোপন বাজারে ছদ্মনামে লেনদেন      বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়াতে মানবপাচারের নতুন রুট ইন্দোনেশিয়া       দিনদিন বাড়ছে ডাক্তারের সংখ্যা: গত পাঁচ বছরে ২৫ হাজার এমবিবিএস ডাক্তার      ডিএনসিসি উপনির্বাচন: আদালতের মাধ্যমে উপনির্বাচন স্থগিত করার আশঙ্কাই সত্য হলো      
পোপের ছয় দিনের মায়ানমার-বাংলাদেশ সফর: ধর্ম-রাজনৈতিক-কূটনৈতিক সবই উপস্থিত
Published : Sunday, 3 December, 2017 at 2:21 AM
পোপের ছয় দিনের মায়ানমার-বাংলাদেশ সফর: ধর্ম-রাজনৈতিক-কূটনৈতিক সবই উপস্থিতবিডিহটনিউজ,ঢাকা: ছয় দিনের বাংলাদেশ-মিয়ানমার সফর শেষে শনিবার রোমের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে গেলেন পোপ ফ্রান্সিস। তার এই বাংলাদেশ-মিয়ানমার সফরকে ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা হলেও রোহিঙ্গা ইস্যুর কারণে এটি কার্যত রাজনৈতিক-কূটনৈতিক সফরে পরিণত হয়েছে বলে মনে করছেন কূটনীতিক ও বিশ্লেষকরা। যেহেতু পোপ, তাই ধর্ম তো থাকছেই।
এদিকে, মিয়ানমার সফরের সময়ে তিনি কূটনৈতিক বিবেচনায় রোহিঙ্গা শব্দটি ব্যবহার করেননি কিন্তু বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে পৃথকভাবে দেখাও করেছেন। একইসঙ্গে তিনি রোহিঙ্গা শব্দটি ব্যবহার করে বলেছেন, ‘ঈশ্বরের উপস্থিতির আরেক নাম রোহিঙ্গা।’
মিয়ানমারে জাতিগত সম্প্রীতির কথা যেমন উল্লেখ করেছেন, তেমনি ঢাকায় রোহিঙ্গাদের সঙ্গে দেখা করে তাদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেছেন পোপ ফ্রান্সিস।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে যুক্তরাষ্ট্রে দায়িত্বপালনকারী বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবির বলেন, ‘পোপ একজন বিশ্ব ব্যক্তিত্ব। তিনি যেখানে যান, সেখানে তার সঙ্গে বিশ্ব মিডিয়াও সফর করে।’ এই কূটনীতিকের ভাষ্য, প্রথমে মিয়ানমার, পরে বাংলাদেশ সফরের সবচেয়ে লক্ষণীয় বিষয় ছিল, রোহিঙ্গা ইস্যুতে তিনি কী বলেন।
উল্লেখ্য, মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের অনুরোধে পোপ ফ্রান্সিস মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শব্দটি ব্যবহার করেননি।
এই প্রসঙ্গে হুমায়ুন কবির বলেন, ‘তার যথেষ্ট নৈতিক কর্তৃত্ব আছে। তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে প্রভাবিত করার ক্ষমতা রাখেন।’ তার মতে, ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি উচ্চারণ করে পোপ বাংলাদেশের হাতকে শক্তিশালী করেছেন। এর ফলে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিশেষ করে তাদের নাগরিকত্ব ও দুঃখ-দুর্দশার চিত্র পোপের মাধ্যমে সারা বিশ্ব দেখেছে বলেও মনে করেন তিনি।  
হুমায়ুন কবির বলেন, ‘আমি বলছি না, এর ফলে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে, তবে একটি পরিবেশ তৈরি হবে।’
জানতে চাইলে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, ‘পোপ একটি দেশের রাষ্ট্রনায়কও বটে। সে হিসেবে তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড থাকবে, এটিই স্বাভাবিক।’ তার মতে, বর্তমান বিশ্বের রাষ্ট্রনায়করা চলমান সহিংসতা ও অন্যান্য বৈরি পরিবেশ মোকাবিলায় ভূমিকা রাখতে অক্ষমতা দেখাচ্ছেন। সেই জায়গায় পোপ তার অনন্য অবস্থান থেকে এই শূন্যস্থান পূরণ করার চেষ্টা করছেন।
হুমায়ুন কবির বলেন, ‘যেকোনও ধরনের দুর্যোগে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় দুর্বল ও সংখ্যালঘুরা। রোহিঙ্গাদের প্রতি সহমর্মিতা দেখিয়ে পোপ একদিকে তাদের প্রতি বিশ্বের মনোযোগ আকর্ষণ করেছেন, অন্যদিকে তাদের সাহস যোগানোর চেষ্টা করেছেন।’ তিনি বলেন, ‘পোপের রাষ্ট্রনায়কসুলভ আচরণ ও নিপীড়িত মানুষের পক্ষে দাঁড়ানো—উভয় কর্মকাণ্ড বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’ তার ভাষ্য, পোপ রোহিঙ্গাদের কথা বলে শুধু যে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, তা নয়। একইসঙ্গে যেকোনও দেশের যেকোনও ধরনের দুর্বল ও সংখ্যালঘু মানুষের পক্ষেও কথা বলেছেন।

যুব সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান
সফরের শেষ দিনে পোপ যুব সমাকে পথভ্রষ্ট না হয়ে জীবনের লক্ষ্য ঠিক করে সামনের দিকে অগ্রসর হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
শনিবার (২ ডিসেম্বর) পোপ নটরডেম কলেজে যুব সম্প্রদায়ের উদ্দেশে দেওয়া তার বক্তব্যে বলেন, ঈশ্বর আমাদের একটি উদ্দেশ্য নিয়ে পাঠিয়েছেন। এটি অনেকটা কম্পিউটার সফটওয়ারের মতো, যা সবসময়ে আপগ্রেড করতে হয়। তিনি বলেন, সবসময় চেষ্টা করো, আপডেট করার। ঈশ্বর যে চ্যালেঞ্জ দেন, তা গ্রহণ করো। এ সময় যুব সম্প্রদায়কে সবসময় ফোনে ব্যস্ত না থেকে বয়স্কদের সঙ্গে আলাপ করে জ্ঞান অর্জনেরও পরামর্শ দেন পোপ।








অন্যান্য পাতার আরও খবর
আজকের রাশিচক্র
সম্পাদক : ইয়াসিন আহমেদ রিপন

ঝর্ণা মঞ্জিল, মাষ্টার পাড়া, মাইজদী, নোয়াখালী। ঢাকা: ৭৯/বি, এভিনিউ-১, ব্লক-বি, মিরপুর-১২, ঢাকা-১২২৬, বাংলাদেশ।
ফোন : +৮৮-০২-৯০১৫৫৬৬, মোবাইল : ০১৯১৫-৭৮৪২৬৪, ই-মেইল : info@bdhotnews.com