আবহাওয়া বিশ্বঘড়ি মুদ্রাবাজার বাংলা দেখা না গেলে                    
শিরোনাম :
অং সান সু চি ও তার সরকার বালিতে মাথা গুঁজে রেখেছে: অ্যামনেস্টি      রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্প-হাসিনা আলোচনা: প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিবের পরস্পর বিরোধী দাবী!      হঠাৎ সুর পাল্টাল সু চি: সু চির বক্তব্যে গুরুত্বপূর্ণ যেসব বিষয়...      সুপেয় পানির জন্য রোহিঙ্গাদের হাহাকার      বাসর রাতে বরকে শাসরোধ করে হত্যার পর লাশ গুমের চেষ্টা!      ঝালকাঠিতে ভেঙ্গে পড়েছে শেরেবাংলা স: প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষা ব্যবস্থা      রোহিঙ্গাদের দূদর্শার নাম আরসা বা আল ইয়াকিন      
মিয়ানমার গ্রামে আগুন: আগুল লাগানোর দৃশ্য দেখলেন রাষ্ট্রদূতরাও (আগুনের ভিডিও)
Published : Thursday, 14 September, 2017 at 12:48 AM, Update: 14.09.2017 3:54:59 PM, Count : 92
মায়ানমারের গ্রামে আগুন থেকে উঠা ধোয়াবিডিহটনিউজ,কক্সবাজার: রোহিঙ্গাদের বাড়ি-ঘরে ফের আগুন দিয়েছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ছয়টায় মংডুর উত্তর পাশে দোরাবিল এলাকায় আগুন জ্বলতে দেখা গেছে। টেকনাফে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গারা জানায়, মংডুর উত্তর পাশে দোরাবিল এলাকার বাড়ি-ঘরে আগুন জ্বলছিল সন্ধ্যা ছয়টার দিকে। মাগরিব নামাজের আগে পূর্বপাড়া পুরোটা পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন পুড়ছে পশ্চিম পাড়া।
রোহিঙ্গাদের বাড়ি-ঘরে আগুন দেওয়ার পর প্রাণ বাঁচাতে বুধবার সন্ধ্যার পর মোহাম্মদ জোহার ও আব্দুল মোতালেব পালিয়ে এসেছেন। তারা বলেন, ‘বাড়িঘর ফেলে জীবন বাঁচাতে পালিয়ে এসেছি। পূর্বপাড়া পুড়ে শেষ হয়ে গেছে। এখন পশ্চিমপাড়া জ্বলছে।’
মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) শেষবারের মতো মাইকিং করে রোহিঙ্গাদের এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দেয় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। এরপরই ছোট ছোট গ্রামে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। বুধবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশে সীমান্ত ঘেঁষে থাকা গ্রাম দোরাবিল গ্রামে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। স্থানীয়রা বাড়িঘর ফেলে সীমান্ত পার হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। 
এর আগে মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) নাফ নদীর তীরবর্তী এলাকায় আগুন জ্বলতে দেখা গেছে। শাহপরীর দ্বীপ থেকে দিনব্যাপী নৌকায় রোহিঙ্গাদের আনা হয়। মংডুর নাফ নদীর তীরবর্তী এলাকা থেকে নৌকায় করে রোহিঙ্গা নিয়ে আসার সময় মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোনও বাধা দেয়নি। নিরাপদেই রোহিঙ্গারা চলে আসে মাছ ধরা নৌকায়।
এদিকে, রোহিঙ্গাদের পার করায় গত রবিবার অন্তত ৬ থেকে ৭টি মাছধরা ট্রলারে কোস্টগার্ড আগুন দিয়েছে বলে অভিযোগ ছিল। কিন্তু তারপরও রোহিঙ্গা পার করা কমেনি। প্রতিদিন রাতেই রোহিঙ্গা প্রবেশ করছে। এমনকি দিনের বেলাতেও নাফ নদী পার হয়ে শত শত রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করছে।
নাফ নদীর তীর ধরে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা হেঁটে হেঁটে পাহারা দিলেও রোহিঙ্গা প্রবেশে তারা বাধা দিচ্ছে না।
মায়ানমারের গ্রামে আলুন দেওয়ার দৃশ্য দেখছেন রাষ্ট্রদূতগণএদিকে কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শনে গিয়ে নাফ নদীর ওপারে মিয়ানমারের গ্রামগুলো আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার দৃশ্য প্রত্যক্ষ করেছেন বাংলাদেশে কর্মরত ৪০টি দেশের কূটনীতিক।  
তমব্রু সীমান্তে ৪০ দেশের রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিকদের পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করেন বিজিবির একজন কর্মকর্তা। তাদের সঙ্গে রয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মাদ শাহরিয়ার আলম। 
পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলীর উদ্যোগে বুধবার যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারতসহ ৪০টি দেশের রাষ্ট্রদূত কক্সবাজারে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে যান। সকালে তারা কক্সবাজারে পৌঁছানোর পরে তাদের উখিয়া উপজেলার তুমব্রু সীমান্তে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তারা নোম্যানস ল্যান্ডে অপেক্ষারত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ করেন। 
সেখানে উপস্থিত একজন সরকারি কর্মকর্তা জানান,দুপুর দেড়টার দিকে কূটনীতিকরা যখন রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ শেষ করে গাড়িতে উঠছিলেন ঠিক তখনই নাফ নদীর ওপারে মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী একটি গ্রামে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় ও ধোঁয়া উড়তে দেখা যায়। সঙ্গে সঙ্গে কূটনীতিকদের গাড়ি বহর থামিয়ে তাদেরকে এ দৃশ্য দেখার সুযোগ করে দেওয়া হয়। এ পরিস্থিতি চাক্ষুষ দেখে অবাক ও হতভম্ব হয়ে পড়েন তারা। সঙ্গে সঙ্গে তাদের অনেককেই এ দৃশ্যের ছবি তুলতে ও ভিডিও করতে দেখা যায়। নোম্যান্স ল্যান্ডে রোহিঙ্গারা আশ্রয় নিয়েছে। 
রাষ্ট্রদূতরা তুমব্রু সীমান্ত ছাড়াও রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সবচেয়ে বড় ক্যাম্প কুতুপালং ক্যাম্প পরিদর্শন করেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ পোস্টে হামলা চালায় সে দেশের একটি বিদ্রোহী গ্রুপ। এতে ১২ পুলিশ সদস্যসহ বহু রোহিঙ্গা হতাহত হয়। এ ঘটনায় রাখাইন রাজ্যে অভিযানের নামে গত ২৫ আগস্ট থেকে সাধারণ মানুষের ওপর হত্যা, ধর্ষণ, বাড়িঘরে আগুনসহ নানা নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী। এরপর থেকে প্রাণ বাঁচাতে রোহিঙ্গারা পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছেন। জাতিসংঘের তথ্য মতে, এ পর্যন্ত পৌনে চার লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। তবে স্থানীয় সূত্রগুলোর ধারণা এই সংখ্যা আরও বেশি। 







জাতীয় পাতার আরও খবর
আজকের রাশিচক্র
সম্পাদক : ইয়াসিন আহমেদ রিপন

ঝর্ণা মঞ্জিল, মাষ্টার পাড়া, মাইজদী, নোয়াখালী। ঢাকা: ৭৯/বি, এভিনিউ-১, ব্লক-বি, মিরপুর-১২, ঢাকা-১২২৬, বাংলাদেশ।
ফোন : +৮৮-০২-৯০১৫৫৬৬, মোবাইল : ০১৯১৫-৭৮৪২৬৪, ই-মেইল : info@bdhotnews.com