আবহাওয়া বিশ্বঘড়ি মুদ্রাবাজার বাংলা দেখা না গেলে                    
শিরোনাম :
অং সান সু চি ও তার সরকার বালিতে মাথা গুঁজে রেখেছে: অ্যামনেস্টি      রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্প-হাসিনা আলোচনা: প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিবের পরস্পর বিরোধী দাবী!      হঠাৎ সুর পাল্টাল সু চি: সু চির বক্তব্যে গুরুত্বপূর্ণ যেসব বিষয়...      সুপেয় পানির জন্য রোহিঙ্গাদের হাহাকার      বাসর রাতে বরকে শাসরোধ করে হত্যার পর লাশ গুমের চেষ্টা!      ঝালকাঠিতে ভেঙ্গে পড়েছে শেরেবাংলা স: প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষা ব্যবস্থা      রোহিঙ্গাদের দূদর্শার নাম আরসা বা আল ইয়াকিন      
ভারতীয় ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে চালের বাজার
Published : Tuesday, 12 September, 2017 at 5:29 PM, Count : 132
ভারতীয় ব্যবসায়ীদের কারসাজিতে অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে চালের বাজারবিডিহটনিউজ,ঢাকা: দেশে চালের দাম সহনশীল রাখাসহ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সরকার চাল আমদানিতে শুল্কের হার দুই দফা কমিয়েছে। শুল্ক কমিয়ে ২৮ ভাগ থেকে ২ ভাগ নির্ধারণ করেছে। তবে এর কোনও সুফল পাচ্ছে না সাধারণ জনগণ। শুল্ক কমানোর খবরে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা চালের দাম তিন দফা বাড়িয়ে ৩৯০ ডলার থেকে বর্তমানে ৫শ’ ডলার নির্ধারণ করেছে। এর  ফলে চালের দাম বেড়ে  প্রতি কেজি ৪২ থেকে ৪৩ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যেখানে ১০ ভাগ শুল্ক থাকাকালে চাল বিক্রি হতো ৩৭ থেকে ৩৮ টাকা কেজি দরে। এখন বন্দরের ব্যবসায়ীরা বলছেন ভারতীয় ব্যবসায়ীদের কারসাজির কারণেই দেশের বাজারে চালের দাম কমছে না।
হিলি স্থলবন্দর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, চাল আমদানিতে শুল্ক ১০ ভাগ থেকে ২ ভাগ করার ফলে বর্তমানে বন্দর দিয়ে গড়ে প্রতিদিন ৬০ থেকে ৭০ ট্রাক চাল আমদানি হচ্ছে। শুল্কহার কমার পর গত ১৯ আগস্ট থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বন্দর দিয়ে ১০৫৪টি ট্রাকে ৩৭,৩৬৬ টন চাল আমদানি হয়েছিল। আর পুরো আগস্ট মাস জুড়ে বন্দর দিয়ে ১৯৪৩টি ট্রাকে ৬৯ হাজার ৫২টন চাল আমদানি হয়েছে। ঈদের ছুটি শেষে চলতি মাসের ৬ তারিখ বন্দর দিয়ে ৬০টি ট্রাকে ২ হাজার ১৮৮টন চাল আমদানি হয়েছে, ৭ আগস্ট ৭৩টি ট্রাকে ২ হাজার ৫৪৯টন, ৯ আগস্ট ৯২টি ট্রাকে ৩ হাজার ১৯০টন, ১০ আগস্ট ১১১টি ট্রাকে ৪ হাজার ৪৭টন চাল আমদানি হয়েছে। এভাবে গত চার দিনে বন্দর দিয়ে ৩৩৬টি ট্রাকে ১১ হাজার ৯৭৪টন চাল আমদানি হয়েছে। আর গত জুলাই মাসে বন্দর দিয়ে ১ হাজার ৬৮৯টি ট্রাকে ৫৭ হাজার ৪৮১টন চাল আমদানি হয়েছে। 
হিলি স্থলবন্দরে চাল কিনতে আসা পাইকারি ক্রেতারা জানান, সরকার চাল আমদানিতে শুল্ক ১০ ভাগ থেকে কমিয়ে ২ ভাগ করায় চালের দাম কেজিতে আড়াই থেকে ৩ টাকা কমার কথা থাকলেও চাল কিনতে এসে দেখছি দাম কমার পরিবর্তে আরও বেড়েছে। প্রতিদিনই ২০ পয়সা থেকে ৫০ পয়সা করে দাম বাড়ানো হচ্ছে। ভারতীয়রা চালের রফতানি মূল্য বাড়িয়ে দিয়েছে। যার কারণে দেশের বাজারে চালের দাম বাড়ছে বলে আমদানিকারকরা জানান।
হিলি বাজারের পাইকারি চাল বিক্রেতা অনুপ বসাক জানান, সরকার চাল আমদানিতে শুল্কহার যে কমলো তার কোনও প্রভাব দেশের চালের বাজারের ওপর পড়েনি। শুধুমাত্র বন্দর দিয়ে চাল আমদানি বেশি হওয়ায় দেশের বাজারে চালের সরবরাহ আগের তুলনায় বেড়েছে। বাজারে চালের সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি, উল্টো দু’সপ্তাহের ব্যবধানে চালের দাম কেজি প্রতি ৩ থেকে ৪ টাকা করে বেড়েছে। বর্তমানে ভারত থেকে আমদানিকৃত স্বর্ণা জাতের চাল বিক্রি হচ্ছে পাইকারিতে (ট্রাকসেল) ৪১ টাকা থেকে ৪১ টাকা ৫০ পয়সা কেজি দরে। আর রত্না জাতের চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৩ টাকা থেকে ৪৩ টাকা ৫০ পয়সা কেজি দরে। অথচ চাল আমদানির শুল্ক ১০ ভাগ থাকা কালে ভারত থেকে আমদানিকৃত স্বর্ণা জাতের চাল বাজারে বিক্রি হয়েছিল ৩৭ থেকে ৩৮ টাকা কেজি দরে। আর রত্না জাতের চাল বিক্রি হয়েছিল ৪১ টাকা কেজি দরে।
হিলি স্থলবন্দরের চাল আমদানিকারক মামুনুর রশিদ লেবু ও হারুন উর রশীদ হারুন জানান, দেশের জনগণ যাতে কম দামে চাল খেতে পারে সে কারণে চালের আমদানি পর্যায়ে আরোপিত শুল্ক ১০ ভাগ থেকে কমিয়ে ২ ভাগ নির্ধারন করেছে সরকার। কিন্তু ভারতীয় ব্যবসায়ীদের কারণে সরকারের সেই আশা পূরণ হচ্ছে না। আমদানিকারকরা ভারতীয় রফতানিকারকদের কাছে পুরোপুরি জিম্মি হয়ে গেছে।
তারা আরও জানান,‘দেশের বাজারে চালের সরবরাহ বাড়াতে ও চালের দাম সহনশীল পর্যায়ে রাখতে ভারত থেকে আমদানির পাশাপাশি ভিয়েতনাম, চায়নাসহ অন্যান্য দেশ থেকে চাল আমদানি করতে হবে তাহলে দেশের চাহিদা যেমন মিটবে তেমনি ভারতীয় ব্যবসায়ীরা শুল্ক কমানোর সেই ফায়দাও হাসিল করতে পারবে না।
হিলি স্থলবন্দর পরিচালনাকারী পানামা হিলি পোর্ট লিংক লিমিটেডের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো.সোহরাব হোসেন জানান,চাল আমদানিতে শুল্কহার কমানোর ফলে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানির পরিমাণ অনেকটা বেড়েছে। বর্তমানে বন্দর দিয়ে গড়ে প্রতিদিন ৬০ থেকে ৭০ ট্রাক করে চাল আমদানি হচ্ছে। ঈদের ছুটি শেষে গত ৬ সেপ্টেম্বর থেকে বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানির পর  ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গত চার কার্যদিবসে ৩৩৬টি ট্রাকে ১১ হাজার ৯৭৪টন চাল আমদানি হয়েছে। আর গত আগস্ট মাসে বন্দর দিয়ে ১৯৪৩টি ট্রাকে ৬৯ হাজার ৫২টন চাল আমদানি হয়েছিল।








অর্থ ও বাণিজ্য পাতার আরও খবর
আজকের রাশিচক্র
সম্পাদক : ইয়াসিন আহমেদ রিপন

ঝর্ণা মঞ্জিল, মাষ্টার পাড়া, মাইজদী, নোয়াখালী। ঢাকা: ৭৯/বি, এভিনিউ-১, ব্লক-বি, মিরপুর-১২, ঢাকা-১২২৬, বাংলাদেশ।
ফোন : +৮৮-০২-৯০১৫৫৬৬, মোবাইল : ০১৯১৫-৭৮৪২৬৪, ই-মেইল : info@bdhotnews.com