আবহাওয়া বিশ্বঘড়ি মুদ্রাবাজার বাংলা দেখা না গেলে                    
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের ওপর সেনাবাহিনীর নৃশংসতা যুদ্ধাপরাধের শামিল: মার্কিন সিনেটর      কুমিল্লায় নগরীতে যুবককে গলা কেটে হত্যা      এমপি কেয়া চৌধুরী’র উপর হামলার ঘটনায় তারাসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা      সৈয়দপুরে হঠাৎ দেখা কাদের-ফখরুলের      সংসদে প্যারাডাইস-পানামা পেপারসে বাংলাদেশিদের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশের দাবি      সোমবার দুপুরের মধ্যে মুগাবের পদত্যাগ চায় তার নিজ দল      প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা বনাম কোচিং       
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়
Published : Friday, 2 June, 2017 at 1:45 AM
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়ডেস্ক রিপোর্ট: ব্যাংকে টাকা রাখলে দ্বিগুন টাকা কর্তনের প্রস্তাবিত বাজেটের বিধান নিয়ে ফেইসবুকে চলছে সমালোচনার ঝড়। বিভিন্ন ফেইসবুক ব্যবহারকারী এই নিয়ে ব্যাঙ্গ বিদ্রুপ করছে ফেইসবুকে।
সাইফুর রহমান আসাদ নামে এক ব্যক্তি তার ফেইসবুকে তথ্য দেন, "আগামী জুলাই থেকে ব্যাংকে টাকা জমা রাখলে সরকার দ্বিগুণ কর কাটবে। করের পরিমানটাও নেহায়েত কম না: 
২০ হাজার ১ টাকা থেকে ১ লাখ পর্যন্ত: ২'শ টাকা
১ লাখ ১ টাকা থেকে ১০ লাখ পর্যন্ত: ১ হাজার টাকা
১০ লাখ ১ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত: ৩ হাজার টাকা।
এতে সঞ্চয়ের নির্ভরশীল জায়গা 'ব্যাংকে' টাকা জমা রাখলে দিতে হবে দ্বিগুন আবগারি শুল্ক।
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়জাকিয়া শিশির নামে এক ফেইসবুক ব্যবহারকারী সরকারের সমালোচনা করে লিখেছেন, "৫০ টাকা মোটা চালের দাম। নজিরবিহীন ঘটনা। বিদ্যুতের দাম ক্রমাগত ভাবে বাড়িয়েই যাচ্ছে, গ্যাসের দাম বাড়াছে হু হু করে। ,করের বোঝা চাপিয়েই যাচ্ছে ক্রমাগত । জীবনের কোনো নিরাপত্তা নেই, শিক্ষার ব্যয় , চিকিৎসার ব্যয় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে । শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বাড়ছে দিনে দিনে। দেশে কর্মসংস্থান নেই। । কষ্টের তীব্রতা বেড়েই চলছে। কিন্তু সবাই চুপ । জানিনা আমাদের রাজনৈতিক দল সমূহ কি করে ।"
রাজেস কর্মকার নামে আরেক ফেইসবুুক ব্যবহারকারী লিখেন, "কাল বাদে পরশু বাজেট ঘোষণা হবে। তাই আবার শেয়ার দিলাম;
'জনগনের আমানত খেয়ানত করতে পারেন না, আপনি।'
"জনগন ব্যাংকে টাকা রাখবে আর আপনার মন চাইলে আপনি সেখান থেকে কিছু টাকা কেটে রেখে দেবেন তা নিশ্চিতভাবেই সুযোগের অপব্যবহার ছাড়া আর কিছু নয়।
সরকারী ব্যাংকগুলোকে যারা ধংশের শেষপ্রান্তে নিয়ে গেছে আপনি তাদের ধরতে পারেন না কিংবা ধরেন না কিন্তু জনগনের সঞ্চয়ের দিকে চোখ তুলে তাকাতে আপনার লজ্জা করে না। প্রতিটা সরকারী ব্যাংক আজ বলতে গেলে মূলধন শুন্য। যাদেরকে লোন দেয়া হয়েছে তাদের বেশীরভাগই পগার পাড়। এই টাকা কিভাবে ফেরত নেবেন তার কোন পরিকল্পনা কি আছে আপনাদের? পাশাপাশি বেশ কিছু প্রাইভেট ব্যাংকের অবস্থাও খারাপ।
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়ক্ষুদ্র উদ্যোগতারা ব্যাংকের কাছে চাইলে ১ লাখ টাকা লোন পায়না কিন্তু যার ১০০ কোটি টাকা ব্যাংকের কাছে দেনা আছে সে চাইলে আরো ২০০ কোটি টাকা পেয়ে যায় নিমিষেই।
দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে টাকা চুরি বা লোপাট হয়ে যায় আর তা ঠেকানোর মতো যথেষ্ট শক্তি কিংবা ব্যবস্থা আপনি না নিয়ে সাধারন মানুষের টাকায় বড় বাজেট দেয়ার পরিকল্পনা করেন।
পূজিবাজারের মাধ্যমে যে পরিমান টাকাপয়সা লুটপাট হয়েছে গত ৮ বছরে তার কোন সূরাহা কি করেছেন আপনি?
ভ্যাটের নামে যে বোঝা মানুষের ডেইলি লাইফে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে তাতেও আপনাদের হচ্ছে না তাই এখন সরাসরি মানুষের পকেটে হাত দিতে চাচ্ছেন!
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়সরকারী কর্মচারীদের দূর্ণীতি আর ঘুষ বাণিজ্য বন্ধ করার ক্ষেত্রে চোখে পড়ার মত কোন পদক্ষেপ কি নিয়েছেন? কিন্তু আপনার চোখ ঠিকই গিয়ে পড়েছে সাধারন জনগনের কষ্টের টাকার উপর গিয়ে! কি চমৎকার!
টেন্ডারের মাধ্যমে হাজার লক্ষ কোটি টাকা এদিক সেদিক হয়ে যাচ্ছে সেদিকে যথেষ্ট নজরদারী না বাড়িয়ে সাধারনের টাকার দিকে তাকানোটা মনে হয় না সঠিক কাজ হচ্ছে।
এমপি, মন্ত্রী আর দলীয় নেতাকর্মীদের দ্বারা যে লুটপাট দেশজুড়ে মহাসমারোহে চলছে সেটি কন্ট্রোল না করে সাধারন মানুষের পকেট কেটে কি বোঝাতে চান তা আসলেই মাথায় ধরে না।
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়সামনে নির্বাচন, আর তার ঠিক আগেই যখন এমন প্ল্যান করেন যে সাধারন মানুষের আমানত থেকে আপনার ইচ্ছা মতন আপনি টাকা কেটে নেবেন তার ফল কি হবে তা সহজেই অনুমেয়। সুতরাং এমন সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে আরো দশবার ভাবুন।
রক্ষক যদি ভক্ষকে পরিণত হয় এর চেয়ে আফসোসের আর কি হতে পারে!
তাই বলছি ভাবুন, ভাবুন এবং আবার ভাবুন।"
রাসেল মাহমুদ বিদ্রুপ করে লেখেন, "টাকা ব্যাংকে রাখলে লাখে হাজার কাটবে? বেডরুমেও নিরাপত্তা নাই যে বালিশের তলে রাখবো!"
ওমর আলী দাবী জানান," আমানতের উপর কর নয়, বরং নির্দিষ্ট মুনাফার উপর কর হতে হবে।"
মোস্তফা ইউসুফ লিখেন," নিজের ব্যাংক একাউন্ট থেকে বিশ হাজার টাকার উপর তুললে দিতে হবে ১০০ টাকা কর, ব্যাংকে টাকা জমা রাখলেও এক লাখ টাকায় ১৫০ টাকা কর দিতে হবে। কর দিতে হবে ব্যাংক থেকে লোন নিলেও।
দেশ বিক্রির শপথ নিন, মুক্ত হস্তে কর দিন।"
ব্যাংকে জমা টাকার উপর কর আরোপে ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড়মোহাম্মদ নূর নবী লিখেন,"পাগ‌লের প্রলাপ বৈই কিছু না। বরঞ্চ ব্যাঙ্ক এ টাকা রাখার জন্য জনগন‌কে উৎসাহ প্রদান কর‌তে হ‌বে। গ‌চ্ছিত টাকার উপর বা জামানতী টাকার উপর লাভ প্রদান কর‌তে হ‌বে। বা‌নি‌জ্যিক লেন‌দে‌নের হিসা‌বে সামান্য কিছু টাকা যাহা সা‌র্ভিস চার্জ কর্তন করা হয়। তার মা‌নে এই নয় যে, লা‌খে ১০০০ টাকা। বাৎস‌রিক হিসা‌বে ধরা যাই‌তে পা‌রে।"
উল্লেখ্য, প্রস্তাবিত বাজেট অনুযায়ী আগামী জুলাই থেকে ব্যাংকে টাকা জমা রাখলে সরকার দ্বিগুণ কর কাটবে। ব্যাংক থেকে নিজের টাকা তুললেও দ্বিগুণ কর দিতে হবে। আবার ব্যাংক থেকে কেউ ঋণ নিতে গেলেও ঋণের সেই অর্থ থেকে দ্বিগুণ কর দিয়ে আসতে হবে সরকারকে। ‘আবগারি শুল্ক’ নামে এসব অর্থ কাটা হবে টাকা জমা দেওয়া ও তোলার সময়। আগামী অর্থবছরের বাজেটে এমন বিধান রাখার প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে বলে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে জানা গেছে।
চলতি অর্থবছরের বাজেটে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেন আবগারি শুল্কমুক্ত রাখা আছে। এনবিআরের প্রস্তাব অনুযায়ী আগামী অর্থবছরেও (২০১৭-১৮) তা বহাল থাকছে। অর্থাৎ ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেন করলে কোনো কর দিতে হবে না। ২০ হাজার এক টাকা থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত জমা ও ঋণের ওপর চলতি বাজেটে ১৫০ টাকা আবগারি শুল্ক নিচ্ছে এনবিআর। আগামী বাজেটে তা বাড়িয়ে ২০০ টাকা করা হচ্ছে। এক লাখ এক টাকা থেকে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জমা ও ঋণের ওপর চলতি বাজেটে আবগারি শুল্ক ধরা আছে ৫০০ টাকা। আগামী অর্থবছরে তা বাড়িয়ে এক হাজার টাকা করা হচ্ছে। ১০ লাখ এক টাকা থেকে এক কোটি টাকা পর্যন্ত লেনদেনের ওপর চলতি অর্থবছরে ১৫০০ টাকা নিচ্ছে সরকার। আগামী ১ জুলাই থেকে তিন হাজার টাকা নেওয়া হবে।
এক কোটি এক টাকা থেকে পাঁচ কোটি টাকা পর্যন্ত লেনদেনে চলতি অর্থবছরে সাত হাজার ৫০০ টাকা আবগারি শুল্ক আদায় করা হচ্ছে। এনবিআর সূত্র মতে, আগামী অর্থবছরে তা বাড়িয়ে ১৫ হাজার টাকা আরোপ করা হচ্ছে। একইভাবে পাঁচ কোটি এক টাকা থেকে আরো বেশি পরিমাণ অর্থ লেনদেনের ওপর বর্তমান আবগারি শুল্ক ১৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে আগামী অর্থবছরে ৩০ হাজার টাকা নির্ধারণ করার প্রস্তাব চূড়ান্ত করা হয়েছে।
এনবিআর সূত্রে জানা যায়, ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের বাজেটের জন্য এনবিআরের চূড়ান্ত করা শুল্ক প্রস্তাবে এরই মধ্যে সই করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান। এতে ২০ হাজার টাকার ওপরে লেনদেনের ক্ষেত্রে আবগারি শুল্ক দ্বিগুণ করার প্রস্তাব রয়েছে। ওই প্রস্তাব অনুযায়ী দেশের বাইরে যাতায়াতের জন্য বিমানে উঠতে গেলেও দ্বিগুণ আবগারি শুল্ক দিতে হবে প্রত্যেক ফ্লাইটে। চলতি অর্থবছরে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ও কানেকটিং ফ্লাইটের প্রতি সিটে প্রত্যেকবারের ক্ষেত্রে এক হাজার ৫০০ টাকা ও এক হাজার টাকা করে আবগারি শুল্ক আরোপ করা আছে। নতুন অর্থবছরে এই শুল্ক বাড়িয়ে তিন হাজার ও দুই হাজার টাকা করা হচ্ছে।







অর্থ ও বাণিজ্য পাতার আরও খবর
আজকের রাশিচক্র
সম্পাদক : ইয়াসিন আহমেদ রিপন

ঝর্ণা মঞ্জিল, মাষ্টার পাড়া, মাইজদী, নোয়াখালী। ঢাকা: ৭৯/বি, এভিনিউ-১, ব্লক-বি, মিরপুর-১২, ঢাকা-১২২৬, বাংলাদেশ।
ফোন : +৮৮-০২-৯০১৫৫৬৬, মোবাইল : ০১৯১৫-৭৮৪২৬৪, ই-মেইল : info@bdhotnews.com