আবহাওয়া বিশ্বঘড়ি মুদ্রাবাজার বাংলা দেখা না গেলে                    
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসন ও ত্রাণ বিতরণে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সেনাবাহিনী       জাতিসংঘের হাইকমিশনার ফিলিপো গ্রান্ডী'র শরণার্থী ক্যাম্প পরির্দশন      যেভাবে মোবাইল ট্র্যাক করে পুলিশ বা হ্যাকাররা      উ. কোরিয়ার ‘সবচেয়ে কাছে’ দিয়ে মার্কিন বোমারু বিমান উড়ে গেল      অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে সেবা বাণিজ্যের অভিযোগ      রোহিঙ্গাদের গ্রামগুলো এখন বৌদ্ধ মগদের দখলে       নিয়োগ পরিক্ষায় প্রক্সি: ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক দুই জনের কারাদন্ড      
পল্লবীতে খেলার মাঠ দখল: ব্যস্ত সড়কে জীবন ঝুকি নিয়ে শিশু কিশোরের খেলাধুলা!
Published : Saturday, 11 March, 2017 at 2:37 PM, Update: 11.03.2017 3:25:21 PM, Count : 784
পল্লবীতে খেলার মাঠ দখল: ব্যস্ত সড়কে জীবন ঝুকি নিয়ে শিশু কিশোরের খেলাধুলা!নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর পল্লবী থানা এলাকা খেলাধুলার চর্চার জন্য সব সময়ই নাম ছিল। কিন্তু, সেই পল্লবী এলাকায় এখন খেলার মাঠ সংকট চরম আকার ধারন করেছে। সিটি ক্লাব মাঠ, হারুণ মোল্লা ঈদ গাঁ মাঠসহ একাধিক ভাল মানের মাঠ থাকার পরও শিশু কিশোররা ব্যস্ত সড়কে জীবন ঝুকি নিয়ে খেলতে দেখা যাচ্ছে।
সিটি ক্লাব মাঠ ক্রিকেট বোর্ডের তালিকাভুক্ত সেরা মাঠ হওয়ার পরও বিভিন্ন অনুষ্ঠানের নামে প্রায় এই মাঠ ব্যবহার হতে দেখা যায়। কিছুদিন পূর্বে স্থানীয় সংসদ সদস্যের মায়ের মৃত্যুর ৪০ দিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানের কারণে মাঠের পিচসহ পুরো মাঠ নষ্ট হয়ে গেছে। এখন চলছে মাঠ সংষ্কারের কাজ। মাঠের ঘাস, পিচ কিছুই আর অবশিষ্ট ছিল না। এছাড়া সারা মাঠ জুড়ে ময়লা-আবর্জনায় ভর্তি হয়ে রয়েছে। যা এখনও পরিষ্কার করার প্রক্রিয়ায় রয়েছে।
হারুণ মোল্লা ঈদ গাঁ মাঠ বরাবরই পল্লবী এলাকার স্থানীয় শিশু-কিশোরের জন্য সবচেয়ে আকর্ষনীয় মাঠ ছিল।পল্লবীর একমাত্র উন্মুক্ত খেলার মাঠ দখল করে আবারো মেলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।এবারের মেলার নাম বৈশাখী মেলা। এর আগেও নভেম্বর ডিসেম্বর মাস জুড়ে মেলার নামে বেদখল ছিলো মাঠটি। অবস্থাদৃষ্টে বছরের বেশীরভাগ সময় বেদখলই থাকছে বাচ্চাদের একমাত্র এ খেলার মাঠটি। মেলার আড়ালে লটারীর নামে জমজমাট জুয়ার আসরের আশঙ্কা করছেন অভিবাবকরা।পল্লবী থানার সামনে অবস্থিত এই মাঠে খেলাধুলা করে বড় হওয়া স্থানীয় বর্ণক ক্লাবের একাধিক সদস্য জানান, এখন শিশু কিশোররা খোলাধুলা করবে কোথায়? তারা যদি নেশা আশক্ত হয়, তবে তার দায় তো সবাইকে নিতে হবে। তাদের চিত্ত বিনোদনের কোন ব্যবস্থাই তো আমরা করতে ব্যর্থ হয়েছি। হারুণ মোল্লা ঈদ গাঁ মাঠে বছরে ৯ মাসই মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এক মেলা শেষ না হতে অন্য মেলার আয়োজন করা হয়।

পল্লবীর ক্রীড়া সংগঠক ও সংশ্লিষ্ট অনেকেই মাঠ সংকটের কথা বলে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে। সারাবছর লেগে থাকা বিভিন্ন মেলায় সবেধন নীলমনি এই একটি মাঠ দিনে দিনে হারাচ্ছে ক্রীড়ায় বিচরন অধিকার। ফলে একদিকে কিশোর-তরুণরা খেলতে না পেরে অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। পাশাপাশি ক্রীড়া সংগঠনগুলোর অনুশীলন ব্যাহত হওয়ায় ভালো খেলোয়াড় তৈরি হচ্ছে না। এভাবে দীর্ঘ সময়ের জন্য মেলার দখলে চলে গেছে পল্লবীর একমাত্র এই উন্মুক্ত খেলার মাঠ। শিশু-কিশোরদের খেলার সুযোগ সীমিত করে এভাবে খেলার মাঠে একের পর এক মেলা আয়োজনে ক্ষুব্ধ ক্রীড়ামোদি ও অভিভাবকরা।
পল্লবীতে খেলার মাঠ দখল: ব্যস্ত সড়কে জীবন ঝুকি নিয়ে শিশু কিশোরের খেলাধুলা!মেলা কর্তৃপক্ষ ইট, বালু ও সিমেন্ট দিয়ে প্রবেশ পথ ও মঞ্চ তৈরী করছেন। ইতোমধ্যেই মাঠ জুড়ে ষ্টলসহ বিভিন্ন স্থাপনা শুরু হয়ে গেছে। ডিএনসিসির ২ নং ওয়ার্ড সংলগ্ন হারুন মোল্লা ঈদগাহ মাঠ নামে পল্লবীর একমাত্র উন্মুক্ত এই মাঠ বেদখল করে এই মেলা আয়োজনের খবরে শিশু-কিশোরদের মধ্যেও ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় মাঠে ঢুকতে না পেরে স্থানীয় শিশুরা পাশের রাস্তায় খেলছে। রাস্তায় খেলতে থাকা এক স্কুলের শিক্ষার্থী তন্ময় প্রায় কেদেই বলে, ‘স্কুলে খেলার মাঠ নাই৷ আবার এই মাঠেও আর খেলতে পারছিনা। তাহলে আমরা কোথায় যাব, কোথায় খেলাধুলা করব? কতক্ষণ আর ঘরে বসে কম্পিউটারে গেমস খেলা যায়!’ তার একটিই কথা, ‘আমরা মেলা চাইনা, চাই খেলার মাঠ৷’ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র তাবরেজ বলেন, ‘স্কুল জীবনে বিদ্যালয়ে মাঠ পাইনি৷ খেলার মাঠ বলতে এই মাঠকেই চিনি৷কিন্তু বছর বেশীর ভাগ সমই মেলার নামে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে সেই মাঠ৷’ অবিলম্বে এই মেলা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন তারা।
জানা গেছে, স্থানীয় একটি প্রভাবশালী রাজনৈতিক মহল এ মেলা আয়োজনের সাথে জড়িত রয়েছে। তারা মেলা চালাতে যেন কোন ঝামেলা না হয় সেজন্য প্রশাসনকে ম্যানেজ করছেন।
স্থানী বর্ণক ক্লাবের সাধারন সম্পাদক মি. বাবুল বলেন, খেলার মাঠ দখল করে ইট-বালুর স্থাপনা তৈরী করে মেলার আয়োজন খুবই দুঃখজনক। অনেকদিন ধরে বলে আসছি, খেলার মাঠে যাতে কেউ মেলার আয়োজন না করে। কিন্তু কাজ হচ্ছে না। দেশে এমনিতে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, মাদকাসক্তসহ নানাবিধ অপরাধ বাড়ছে। মেলার নামে লটারি বা জুয়ার আসর বসলে এসব অপরাধ আরও বাড়বে বলে তিনি মনে করেন।
এই মেলা আয়োজনের বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশের মিরপুর বিভাগের একজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা নাম না প্রকাশ করা শর্তে জানান, আমাদের কি করার আছে? স্থানীয় সংসদ সদস্য যদি চায়, আমাদের মেলা আয়োজনের অনুমতি তো দিতেই হবে।







খেলাধুলা পাতার আরও খবর
আজকের রাশিচক্র
সম্পাদক : ইয়াসিন আহমেদ রিপন

ঝর্ণা মঞ্জিল, মাষ্টার পাড়া, মাইজদী, নোয়াখালী। ঢাকা: ৭৯/বি, এভিনিউ-১, ব্লক-বি, মিরপুর-১২, ঢাকা-১২২৬, বাংলাদেশ।
ফোন : +৮৮-০২-৯০১৫৫৬৬, মোবাইল : ০১৯১৫-৭৮৪২৬৪, ই-মেইল : info@bdhotnews.com